সাংবাদিকদের সাথে যশোর কোতোয়ালির ওসির অসৌজন্যমূলক আচরণের নিন্দা - Jashore Tribune

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Thursday, February 4, 2021

সাংবাদিকদের সাথে যশোর কোতোয়ালির ওসির অসৌজন্যমূলক আচরণের নিন্দা

 


যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের (জেইউজে) যুগ্ম-সম্পাদক তবিবর রহমানের মোটরসাইকেল চুরির ঘটনায় যশোর কোতোয়ালি থানায় অভিযোগ দায়ের করতে গিয়ে পুলিশের অসৌজন্যমূলক আচরণের শিকার হয়েছেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।

বুধবার রাতে যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের (জেইউজে) সভাপতি ফারাজী আহমেদ সাঈদ বুলবুল, যুগ্ম-সম্পাদক তবিবর রহমানসহ সাংবাদিকদের সাথে যশোর কোতোয়ালির ওসির অসৌজন্যমূলক এ আচরণ করেন। এর তীব্র নিন্দা প্রকাশ করেছেন জেইউজে নেতৃবৃন্দ।

এক বিবৃতিতে জেইউজে’র সহসভাপতি প্রদীপ ঘোষ, সাধারণ সম্পাদক এইচ আর তুহিন, কোষাধ্যক্ষ স্বপ্না দেবনাথ এবং নির্বাহী সদস্য ডিএইচ দিলশান ও রিপন হোসেন নিন্দা প্রকাশ করেছেন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্মসম্পাদক তবিবর রহমানের বাড়ি থেকে বুধবার রাতে তার মোটরসাইকেল চুরি হলে নেতৃবৃন্দ কোতোয়ালি থানায় জিডি করতে যান। এসময় ওসি মনিরুজ্জামান সাংবাদিক নেতাদের সাথে অসম্মানজনক কথাবার্তা বলেন।

সাংবাদিকদের সাথে এ ন্যাক্কারজনক ঘটনার সুষ্ঠু সমাধান না হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে নেতৃবৃন্দ বিবৃতিতে জানান। একই সাথে নেতৃবৃন্দ মোটরসাইকেলটি দ্রুত উদ্ধারের দাবি জানান।

একই ধরণের বিবৃতি দিয়েছেন বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহসভাপতি মনোতোষ বসু, যুগ্মমহাসচিব সাকিরুল কবীর রিটন, সদস্য নুর ইমাম বাবুল ও গোপীনাথ দাস।

প্রসঙ্গত : যশোর শহরের এমএম আলী রোডের সমবায় ব্যাংকের পেছনে চতুর্থ তলা ভবনের বাসার সামনে রাখা সাংবাদিক তবিবর রহমানের লাল রঙের ওই হিরো হোন্ডা মোটরসাইকেলটি চুরি হয়েছে। এখানে ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাজী সুমনের অফিস রয়েছে। সেখানে থাকা সিসিটিতে দেখা যায়, বুধবার রাত ৯ টায় চুরি করে নেওয়া হচ্ছে।

এই ঘটনায় ওই রাতেই যশোর কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেছেন মোটরসাইকেলটির মালিক যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের (জেইউজে)’র যুগ্ম সম্পাদক ও দৈনিক সমাজের কথার চিফ রিপোর্টার তবিবর রহমান।

মামলার বিবরণে তিনি উল্লেখ করেছেন, তার ভাড়া বাসার অবস্থান সমবায় ব্যাংকের পেছনে ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাজী সুমনে অফিসের সামনে। তিনি মোটরসাইকেলটি ভাড়া বাসার নিচে রেখে বুধবার সন্ধ্যার দিকে কর্মস্থল দৈনিক সমাজের কথা অফিসে যান। এরপর অফিস থেকে ফিরে দেখতে পান মোটরসাইকেরটি সেখানে নেই। অজ্ঞাত চোরেরা চুরি করে নিয়ে গেছে। অনেক খোঁজাখুঁজির পর না পেয়ে কাউন্সিলর হাজী সুমনের অফিসের সিসিটিভিতে দেখা যায় রাত ৯টার দিকে মোটরসাইকেলটি এক চোর নিয়ে যাচ্ছে।

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad