প্রতারণা অনিয়মসহ নানা অভিযোগে অডিট যশোরে দেড়শ’ সমবায় অকার্যকর - Jashore Tribune

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Wednesday, November 11, 2020

প্রতারণা অনিয়মসহ নানা অভিযোগে অডিট যশোরে দেড়শ’ সমবায় অকার্যকর

 


পাবলিকের সাথে প্রতারণা, অর্থ আত্মসাৎ, বিধি ভুলুণ্ঠিত করণ ও বিশৃংখলা রোধে যশোর সদর উপজেলার কয়েকটি গ্যাটাগরির ৪শ’ ৮৭টি সমবায় সমিতির ব্যাপারে জোরালো অডিট কার্যক্রম চালানো হয়েছে। এর মধ্যে নাম সর্বস্ব, প্যাড আছে অফিস নেই, নির্বাচন নেই, একই কমিটি দীর্ঘদিন, লেনদেন নেই, শেয়ার সঞ্চয় নেই এমন ১শ’৪৭ টি সমবায় সমিতি অকার্যকর বলে প্রতিবেদন দাখিল করেছে যশোর সদর উপজেলা সমবায় অফিস।

এছাড়া এদের মধ্যে অনেকগুলো আবার প্রতারণা ও নানা অনিয়মে জাড়িয়ে নিস্ক্রিয় হয়ে পড়েছে। আবার অনেকগুলো পাবলিকের টাকা হাতিয়ে প্রতিষ্ঠান গুটিয়ে লাপাত্তা হয়েছে।
সূত্র জানিয়েছে, এক যুগেরও বেশি সময়ে যশোর শহর, শহরতলী ও সদর উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চলে ব্যাঙের ছাতার মত গজিয়েছে সাধারণ সমবায় সমিতি। যশোর সদর উপজেলায় এর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এখন ৪শ’৮৭টি। এর মধ্যে ৪শ’টি রয়েছে সাধারণ সমবায় সমিতি। গত ১১ বছরে মাল্টিপারপাস সমবায় সমিতি গজিয়েছে বেশি, যার সংখ্যা ডজন তিনেক। নানা অনিয়ম দুর্নীতির কারনে সদর উপজেলার বেশিরভাগ মাল্টিপারপাসের কার্যক্রম বিগত ৫/৭ বছর বন্ধ রয়েছে। আর সাধারণ ও মাল্টিপারপাস মিলিয়ে শতাধিক সমবায় সমিতি নিস্ক্রয় ও স্থবির হয়ে পড়েছে বলে তথ্য পেয়ে অতি সম্প্রতি মাঠে নামে উপজেলা সমবায় অফিসের কর্মকর্তারা। কয়েকটি চিহ্নিত মাল্টিপারপাস সমবায় সমিতি গ্রাহকদের কোটি কোটি টাকা নিয়ে লাপাত্তা হওয়ার নজিরকে সামনে নিয়ে অডিট কার্যক্রম শুরু করেন সমবায় কর্মকর্তাগন। বিশেষ করে অনিয়ম প্রতারণা করে মামলায় জড়িয়ে পড়া প্রতিষ্ঠান আল এহসান শরীয়া মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেড, সেবক মালিটপারপাস কো অপারেটিভ সোসাইটি,  প্রত্যয় মাল্টিপারপাস, এহসান এস ইসলামী মাল্টিপারপাস, প্রাইম মাল্টিপারপাস, যমুনা মল্টিপারপাস, উদ্যোগ মাল্টিপারপাস, ম্যাক্সিম মাল্টিপারপাস লিমিটেড, মর্ডাণ মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ, পপুলার ইসলামী সঞ্চয় ও ঋণদান সমবায় সমিতি ও জনতা সঞ্চয় ও ঋণদান সমবায় সমিতির মত প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার মানসে এই অডিট শুরু হয়। আর অডিটে নেমে ভয়ংকর তথ্য পেয়েছেন সমবায় কর্মকর্তাগন।
অডিট ও অনুসন্ধানে সমবায় কর্মকর্তারা তথ্য পেয়েছেন, চলতি নভেম্বর মাস পর্যন্ত সদর উপজেলার ১শ’৪৭টি সমবায় সমিতি অকার্যকর। এর মধ্যে যশোর পৌর এলাকায় রয়েছে ২০টি।  অনেকগুলো কার্যক্রম না চালিয়ে বন্ধ রেখেছে। ডজনখানেক মাল্টিপারপাস সাধারণ মানুষকে পথে বসিয়ে সটকে পড়েছে। এদের মধ্যে অনেকগুলোর শুধু প্যাড আছে কিন্তু অফিস নেই কার্যক্রম নেই। কমিটি আছে, খাতা কলমে নির্বাচন নেই। কমিটির অনেকেই জানেন না তারা কমিটির সদস্য। আবার একই কমিটিতে স্বামী সভাপতি স্ত্রী সম্পাদক বোন সহ-সভাপতি। আবার পিতা সভাপতি ছেলে সম্পাদক বোন সহসভাপতি। আবার পরিবারের অন্য সদস্যরা বছরের পর পর বছর দায়িত্বশীল পদ দখল করে আছেন। এ কারণে পাবলিকের টাকা আমানত নিয়ে সহজেই তারা হজম করেছে। আবার কারো লেনদেন নেই, শেয়ার সঞ্চয় জমা নেই। অকার্যকর ওই ১৪৭টি সমবায় সমিতির ব্যাপারে যশোর জেলা সমবায় অফিসারে কার্যালয়ে পরবর্তী ব্যবস্থা নিতে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে কথা হয় যশোর সদর উপজেলা সমবায় অফিসার রনজিত কুমার দাসের সাথে। তিনি জানান, এ ব্যাপারে বেশ আগে থেকেই কাজ শুরু করে যশোর সদর উপজেলা সমবায় অফিস। অডিটে ধরা পড়েছে ১শ’৪৭টি। কোনো কার্যক্রমই নেই। ওই সব প্রতিষ্ঠানের উপরে নজরদারি চলছে। জেলা অফিস ওই সমবায় সমিতিগুলোকে নোটিশ করবে। পরে তাদের নিবদ্ধন বাতিলসহ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
সুত্রঃ গ্রামের কাগজ

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad