বাঁকড়ায় সিভিল সার্জনের ঝটিকা অভিযান : খবর শুনে পালিয়েছে ৩ ক্লিনিকের মালিক, ৫ ক্লিনিকে তালা - Jashore Tribune

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Saturday, November 28, 2020

বাঁকড়ায় সিভিল সার্জনের ঝটিকা অভিযান : খবর শুনে পালিয়েছে ৩ ক্লিনিকের মালিক, ৫ ক্লিনিকে তালা

 


যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার বাঁকড়ায় সিভিল সার্জনের অভিযানের সংবাদ শুনে ক্লিনিক তালাবদ্ধ করে পালিয়েছেন ৩ ক্লিনিক মালিক। এ অবস্থায় ৫ টি ক্লিনিক তালাবদ্ধ করেন সিভিল সার্জন। সঠিক নির্দেশনা মেনে ক্লিনিক চালাতে নির্দেশ দেন আরও ৩ ক্লিনিককে।

শনিবার সকালে যশোর সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহিন ঝিকরগাছার বাঁকড়ায় ঝটিকা অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানের সংবাদ শুনে বাঁকড়া পারবাজারের কপোতাক্ষ সার্জিক্যাল ক্লিনিকের মালিক আব্দুর রশিদ, পারবাজার সার্জিক্যাল ক্লিনিকের মালিক লিলি খাতুন ও স্টার ক্লিনিকের মালিক আবুল হাসেম ক্লিনিক বন্ধ করে পালিয়ে যান। যাতে করে, সিভিল সার্জন এসে তাদের প্রতিষ্ঠান বন্ধ দেখেন।

কয়েক মাস আগে সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহিন বাঁকড়ায় অভিযান চালিয়ে ক্লিনিক চালানোর বৈধতা না থাকায় তাদের ক্লিনিক বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন। কিন্তু তারা সিভিল সার্জনের নির্দেশ অমান্য করে ক্লিনিকের জমজমাট ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছিলেন। তবে শনিবার তার আসার খবর পেয়ে ক্লিনিক মালিকরা ক্লিনিক বন্ধ কওে পালিয়ে যাওয়ায সিভিল সার্জন তাদের ক্লিনিক খোলা পাননি।

তবে খোঁজ খবর নিয়ে সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহিন নিশ্চিত হন ক্লিনিকগুলো খোলা ছিল। এ অবস্থায় তিনি বাঁকড়া সার্জিক্যাল ক্লিনিক, স্টার ক্লিনিক, পারবাজার কপোতাক্ষ সার্জিক্যাল ক্লিনিক, পারবাজার সার্জিক্যাল ক্লিনিক ও একতা মেডিকেল সেন্টারে তালা ঝুলিয়ে দেন। এ ছাড়া সায়রা সার্জিক্যাল ক্লিনিক ও বিকে ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে পুরোপুরী আইন মানার নির্দেশনা দেন। অভিযানের সময় সাভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহিনের সাথে ছিলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা. হাবিবুর রহমান।

 সিভিল সার্জন ডাঃ শেখ আবু শাহিন সাংবাদিকদের জানান, ক্লিনিক বিষয়ে কোন অনিয়ম মেনে নেয়া হবে না। কাগজপত্র ও নিয়ম মানলে বৈধতা দেওয়া হবে।

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad