যশোরে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে সংক্ষিপ্ত পরিসরে - Jashore Tribune

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Wednesday, October 21, 2020

যশোরে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে সংক্ষিপ্ত পরিসরে


 দুর্গাপূজাকে সামনে রেখে সংবাদ সম্মেলন করেছে যশোর জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ। বুধবার বেলা সাড়ে ১২ টায় প্রেসক্লাব যশোরে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। বৈশ্বিক মহামারি করোনা দুর্যোগের কারণে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং কেন্দ্রীয় পূজা উদযাপন পরিষদের নির্দেশনা মেনে এবারের শারদীয় দুর্গাপূজা উদযাপনের আহ্বান জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে। এ সময় সার্বিক প্রস্তুতি, পূজা মণ্ডপের সংখ্যাসহ অন্যান্য বিষয় উপস্থাপন করা হয় লিখিত বক্তব্যে।

লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক যোগেশ দত্ত। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন সভাপতি অসীম কুণ্ডু। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা কমিটির সহসভাপতি বিষ্ণু সাহা, দীপক রায়, কোষাধ্যক্ষ মৃণাল কান্তি দে, সাংগঠনিক সম্পাদক বৈদ্যনাথ দাস, সদর উপজেলা সভাপতি দুলাল সমাদ্দার, সাধারণ সম্পাদক দেবেন ভাস্কর, জেলা কমিটির গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক উজ্জ্বল বিশ্বাস, সদস্য সুকুমার চক্রবর্তী ও সনৎ সাহা। 

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, এ বছর জেলায় মোট ছয়শ’২৮ টি মন্দিরে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় একশ’২৮টি, ঝিকরগাছায় ৪৪টি, শার্শায় ২৬, চৌগাছায় ৩৯, অভয়নগরে একশ’২২, মণিরামপুরে ৯৩, বাঘারপাড়ায় ৮১ এবং কেশবপুরে ৯১টি মণ্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে। শান্তিপূর্ণ ও সুশৃঙ্খল পরিবেশে পূজা উদযাপনের জন্যে জেলা প্রশাসন,পূজা পরিষদ এবং পুলিশ প্রশাসন বিশেষ প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ এবং তত্ত্বাবধানের জন্যে জেলা পূজা পরিষদের কার্যালয়  লালদিঘি পুকুর পাড়ের  শ্রী শ্রী হরিসভা মন্দিরে কন্ট্রোলরুম খোলা হয়েছে। প্রতিবারের মতো এবারও সমস্ত রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের সর্বোচ্চ নির্বাহীবৃন্দ, সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠনের কর্মকর্তাবৃন্দের সাথে পূজা মন্দির পরিদর্শনের ব্যবস্থা করা হবে। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় প্রতিবারের মতো এবারও লালদিঘিতে প্রতিমা বিসর্জনের ব্যবস্থা থাকবে। তবে এবারের প্রতিমা বিসর্জনের ক্ষেত্রে কোনো প্রকার শোভাযাত্রা এবং বিসর্জনস্থল লালদিঘি এলাকায় সকল প্রকার অনুষ্ঠান বর্জন করা হয়েছে।  
পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অসীম কুন্ডু বলেন, যশোরসহ সারাদেশেই এবারের শারদোৎসবের বিভিন্ন কর্মসূচি সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। পূজার আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করা হবে স্বাস্থ্য বিধি মেনে। জৌলুসপূর্ণ আলোকসজ্জা, মণ্ডপের সাজসজ্জা, থিম, আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, আরতি প্রতিযোগিতা, সাউন্ড সিস্টেম বর্জন করা হবে। পূজামণ্ডপ ও বিসর্জন অনুষ্ঠানে লোকসমাগম বেশি না করার জন্য সবাইকে নিরুৎসাহিত করে ভক্ত ও দর্শনার্থীরা যাতে সুরক্ষিত থাকে তার জন্য সবার প্রতি ২৬ দফা নির্দেশনা যথাযথভাবে মেনে চলার আহ্বান জানান তিনি।

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad