রাত পোহালেই যশোর সদর উপজেলায় উপনির্বাচন এবার সকালে যাবে ব্যালট - Jashore Tribune

Breaking

Home Top Ad

Post Top Ad

Sunday, October 18, 2020

রাত পোহালেই যশোর সদর উপজেলায় উপনির্বাচন এবার সকালে যাবে ব্যালট

 


রাত পোহালেই যশোর সদরসহ বিভিন্ন উপজেলায় উপনির্বাচন। এবার আর আগের দিন সন্ধ্যায় ব্যালট পেপার যাচ্ছে না কেন্দ্রে কেন্দ্রে। যাবেন না প্রিসাইডিং অফিসারও। ভোটকেন্দ্রে ব্যালট যাবে ভোটের দিন সকাল বেলা। দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের সকাল নয়টার আগে ব্যালট নিয়ে কেন্দ্রে পৌঁছানোর নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন যশোর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার।

আগামীকাল সারাদেশে বিভিন্ন উপজেলায় উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। খুলনা বিভাগে এ তালিকায় তিনটি উপজেলা রয়েছে। এগুলো হচ্ছে, যশোর সদর, খুলনার পাইকগাছা ও বাগেরহাটের শরণখোলা।
এবারের উপনির্বাচনে ভোট গ্রহণের সময় এক ঘণ্টা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। সকাল নয়টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত চলবে ভোট গ্রহণ। এই সময়ের মধ্যে যারা কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন তারাই ভোট দিবেন। যদিও এর আগে ভোট গ্রহণ করা হতো সকাল আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত।
নির্বাচন কমিশন সূত্র জানিয়েছে, আজ সন্ধ্যার মধ্যে ভোট গ্রহণের যাবতীয় সরঞ্জামাদি কেন্দ্রে পৌঁছে যাবে। শুধু পৌঁছাবে না ব্যালটপেপার। ব্যালটপেপার যাবে ভোটের আগ মুহূর্তে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন যশোর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হুমায়ুন কবিরও।
যশোরে ভোটের দিন সকালে ব্যালটপেপার যাওয়ার ঘটনা এটিই প্রথম না। জাতীয় সংসদের উপনির্বাচনে যশোর-৬ কেশবপুর আসনেও ভোটের দিন সকালে ব্যালটপেপার পাঠানো হয়েছিল বলে জানিয়েছেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা।
যশোর সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে একশ’ ৭৫ টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ করা হবে। এরমধ্যে একশ’ ৪২ টি কেন্দ্রকে ‘গুরুত্বপূর্ণ’ বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। বাকি ৩৩ টি কেন্দ্র সাধারণের তালিকায় রেখেছে নির্বাচন কমিশন।
রিটার্নিং অফিসার হুমায়ুন কবির জানিয়েছেন, নির্বাচনে প্রতিটি কেন্দ্রে চারজন করে পুলিশ, ১২ জন আনসার আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় দায়িত্ব পালন করবেন। তিনটি ইউনিয়নের জন্যে থাকবেন একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। থাকবেন একজন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটও। স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে থাকবে বিজিবি। বিজিবির সাথে চারজন ম্যাজিস্ট্রেট থাকবেন বলে জানান রিটার্নিং অফিসার। তবে, এটি প্রয়োজনে কমবেশি করা হবে। যশোর সদর উপজেলার উপনির্বাচনে পাঁচ লাখ ৬০ হাজার পাঁচশ’ ২৫ জন ভোটারের ভোটাধিকার প্রয়োগের কথা রয়েছে। ভোট নিয়ে রিটার্নিং অফিসার হুমায়ুন কবির বলেন, ‘সকলের সহযোগিতায় শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ হবে বলে মনে করি।

No comments:

Post a Comment

Post Bottom Ad